১৭ বছরের গাভির নৈপুণ্যে জয়ে ফিরলো বার্সেলোনা - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

১৭ বছরের গাভির নৈপুণ্যে জয়ে ফিরলো বার্সেলোনা

SS iT Computer

১৭ বছরের গাভির নৈপুণ্যে জয়ে ফিরলো বার্সেলোনা: বার্সার তিন স্কোরদাতা ১৭ বছর বয়সী গাভি, ১৯ বছর বয়সী নিকে ও ২২ বছর বয়সী জুতগ্লাবার্সার তিন স্কোরদাতা ১৭ বছর বয়সী গাভি, ১৯ বছর বয়সী নিকে ও ২২ বছর বয়সী জুতগ্লা
টানা চার ম্যাচে জিততে ব্যর্থ হওয়ার পর অবশেষে জয়ের মুখ দেখলো বার্সেলোনা। শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাতে এলচের মুখোমুখি হয় কাতালুনিয়ানরা। শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা। অবশ্য একটা সময় মনে হচ্ছিল আবারও পয়েন্ট হারাতে যাচ্ছে বার্সা। তবে সেটি আর হয়নি।

পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছেন ১৭ বছর বয়সী গাভি। তিনি নিজে একটি গোল করেছেন এবং নিকোলাস গঞ্জালেসকে দিয়ে করিয়েছেন আরও একটি। বার্সার জার্সিতে এই প্রথম গোলের দেখা পেয়েছেন তরুণ মিডফিল্ডার গাভি। এদিন, নূ-ক্যাম্প জুড়ে কেবল একটি ধ্বনিই বেজেছে গাভি! গাভি! গাভি! যেন তরুণ মেসি আবারও বার্সার জার্সিতে খেলতে নেমেছেন!

তরুণদের ওপর ভর করেই নতুন যুগের বার্তা দিচ্ছে বার্সেলোনা
এই গোলের মধ্য দিয়ে পেছনে ফেলেছেন সাবেক অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে। বার্সার হয়ে সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতার তালিকায় এখন তৃতীয় স্থানে গাভি। গোল করার সময় তার বয়স ১৭ বছর ১৩৫ দিন। অন্যদিকে, চতুর্থ স্থানে নেমে যাওয়া মেসি বার্সার হয়ে প্রথম গোলটি যখন করেছিলেন তখন তার বয়স ছিল ১৭ বছর ৩৩১ দিন। এ তালিকায় শীর্ষে আনসু ফাতি (১৬ বছর ৩০৪ দিন বয়স) এবং দ্বিতীয় স্থানে সাবেক স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড বোয়ান কিরকিচ।

ম্যাচ শেষে গাভির প্রশংসায় পঞ্চমুখ কোচ জাভি বলেন, ‘সে অসাধারণ খেলেছে। ১৭ বছর বয়স অনুযায়ী ওর খেলা চমক জাগায়। আমার বয়স যখন ১৭ ছিল, সবকিছুই অনেক কঠিন বলে মনে হতো। বার্সেলোনা দুর্দান্ত এক প্রজন্মের সাক্ষী হতে যাচ্ছে। যেখানে গাভি আছে, নিকো আছে, আছে আবদে ও আরাউহো।’

এদিন ১৬ মিনিটেই বার্সেলোনাকে এগিয়ে নেন জুতগ্লা। গত সপ্তাহে ওসাসুনার বিপক্ষে অভিষেক হয়েছে এই তরুণের। এটি বার্সার জার্সিতে তার দ্বিতীয় গোল। প্রথম গোলটি করেছিলেন বোকা জুনিয়র্সের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে। এর তিন মিনিট পরই অবিশ্বাস্য গোল করে বার্সার নতুন যুগের আগমনী বার্তা দেন গাভি।

প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় কাতালান ক্লাবটি। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে নেমেই দুটি গোল খেয়ে বসে তারা। আগের দুটি ম্যাচেও এগিয়ে থেকে শেষ পর্যন্ত জিততে পারেনি তারা। ফলে আবারও সেই শঙ্কা দেখা দিয়েছিল। তবে এ যাত্রায় ত্রাতার ভূমিকায় গাভি। ৮৫ মিনিটে তার এসিস্টে স্কোরলাইন ৩-২ করেন নিকো গঞ্জালেস।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.