হাবিপ্রবিতে করলার নতুন জাত উদ্ভাবন - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

হাবিপ্রবিতে করলার নতুন জাত উদ্ভাবন

SS iT Computer

হাবিপ্রবিতে করলার নতুন জাত উদ্ভাবন: দিনাজপুরের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) কৌলিতত্ত্ব হাজী মোহাম্মদ দানেশ ও উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের পিএইচডি গবেষক ফররুখ আহমেদের গবেষণায় এবং প্রফেসর ড. মো. হাসানুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে করলার দুইটি নতুন জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। জাত দুটির নাম দেয়া হয়েছে ‘এইচএসটিইউ-১’ ও ‘এইচএসটিইউ-২’।

বৃহস্পতিবার (১১নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের আই.আর.টি’র সেমিনার কক্ষে গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার, পোষ্ট গ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম।

এ বিষয়ে গবেষণার তত্ত্বাবধায়ক প্রফেসর ড. হাসানুজ্জামান বলেন, নতুন উদ্ভাবিত জাতের করলার ফসল ৪২ দিন সময় লাগে কিন্তু আগের গুলো হতে ৪৬দিন সময় নেয়। এর একর প্রতি ফলন ১১.২ টন যা আগের তুলনায় ১.২ টন বেশি। প্রতিটি ফলের দৈর্ঘ্য ২৭ সে.মি. এবং ফলের ওজন ২৬০ গ্রাম। যা অন্যান্য জাতের তুলনায় বেশি। করলার গায়ের দাগ বা কাঁটার পরিমাণ কম হওয়ার কারণে পরিবহনে সুবিধা।

ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, অতিদ্রুত বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা কার্য সমৃদ্ধ করার প্রত্যয়ে ‘জিন ব্যাংক’ এবং ‘প্রযুক্তি গ্রাম’ প্রতিষ্ঠার আশ্বাস প্রদান করেন। এছাড়াও তিনি কৃষি গবেষণা মাঠের উন্নয়ন, পাবলিক – প্রাইভেট নীতিমালা গ্রহণের বিষয়েও গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি আরো বলেন,বাংলাদেশ এখন কৃষিক্ষেত্রে বিশ্বে রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, কৌলিতত্ত্ব ও উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ হাসানুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে এর আগেও মিষ্টি কুমড়ার দুটি জাত (হাজী ও দানেশ) উদ্ভাবিত হয়েছে।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.