শিক্ষা ক্যাডারের যোগ্য সবাইকে পদোন্নতির দাবিতে স্মারকলিপি - আজকের শিক্ষা || Ajkershiksha.com

শিক্ষা ক্যাডারের যোগ্য সবাইকে পদোন্নতির দাবিতে স্মারকলিপি

SS iT Computer

শিক্ষা ক্যাডারের যোগ্য সবাইকে পদোন্নতির দাবিতে স্মারকলিপি: প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতিযোগ্য সবাইকে দ্রুত পদোন্নতির দাবিতে শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দিয়েছেন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার, উন্মুক্ত মঞ্চ নেতারা। গতকাল সোমবার দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে গিয়ে তারা শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ও উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর দপ্তরে স্মারকলিপি জমা দেন। সংশ্লিষ্ট ডেস্ক সেগুলো গ্রহণ করে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দ থেকে সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের বিভিন্ন টায়ারে পদোন্নতি বন্ধ ছিল। মন্ত্রীর নির্দেশে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে ফের পদোন্নতি দেওয়া শুরু হয়। কিন্তু অধ্যাপক পদে পদোন্নতি হয়ে প্রক্রিয়াটি থেমে যায়, যেটি পরে ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের মে মাসে আবার শুরু হলে সহযোগী অধ্যাপক পদে বিভাগীয় পদোন্নতি সভা বসে এবং জুন মাসে একটা ধাপে (টায়ারে) পদোন্নতি হয়। শিক্ষা ক্যাডারে এভাবে অতীতে কখনো পদোন্নতি হয়নি। ওই পদোন্নতিরই অংশবিশেষ প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক পদে এখনো পদোন্নতি হয়নি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। কেননা পদোন্নতির দীর্ঘ জটে যারা পড়েছেন, অবশিষ্ট এই ধাপে (টায়ারে) দ্রুত পদোন্নতি না হলে তাঁদের পরিস্থিতি আরও ক্রমাবনতিশীল হচ্ছে।

উন্মুক্ত মঞ্চ, বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার-এর সমন্বয়ক ড. কাজী জাকির হোসেন স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয়, এ ক্যাডারের ২৮ ব্যাচের অনেক কর্মকর্তা ১০ বছর ৫ মাস ধরে প্রভাষক, ২৯ ব্যাচের অনেকে ১০ বছর ধরে প্রভাষক, ৩০ ব্যাচের অধিকাংশ ৯ বছর প্রভাষক, ৩১ ব্যাচ ৯ বছর প্রভাষক, ৩২ ব্যাচ ৮ বছর প্রভাষক, ৩৩ ব্যাচ ৮ বছর পূর্ণ হতে চলেছে এখনো প্রভাষক, ৩৪ ব্যাচও ইতোমধ্যে পদোন্নতিযোগ্য হয়েছে। সিলেকশন গ্রেড বন্ধ হওয়ায় সমস্যাআরও গভীর আকার ধারণ করেছে।

বৈষম্যের শিকার ক্যাডার কর্মকর্তাদের বঞ্চনা, হতাশাসহ সব বিষয় তুলে ধরে অতিদ্রুত তা নিরসনে শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

স্মারকলিপিতে শিক্ষা ক্যাডারের সর্ব প্রভাষক আকরাম হোসেন, এ কে এম ইফতেখারুল আলম চৌধুরী, আবু ছৈয়দ মোহাম্মদ মুজিব ও রাজু আহমদ-এর স্বাক্ষর ছিলো।

বাছাইকৃত সংবাদঃ

আপনার মতামত প্রকাশ করুন