বিশখালীর চরে লাখ লাখ অতিথি পাখির মেলা - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

বিশখালীর চরে লাখ লাখ অতিথি পাখির মেলা

SS iT Computer
কখনো জলে ভেসে ভেসে আবার কখনো নিঝুম চরে ঝাঁকে ঝাঁকে খেলায় মত্ত শীতের অতিথি পাখিরদল। ঝালকাঠির বিশখালী নদী আর বিস্তির্ন চরে লাখ লাখ পাখির যেন মেলা বসেছে। গ্রামবাসীর ভালোবাসায় প্রতি বছর শীতের এই সময়টায় আগমন ঘটে এসব অতিথিদের। দুষ্ট শিকারীদের রক্তচক্ষু থাকলেও ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয়দের দেখভালে চলছে অতিথিদের বরণ। 

ঝালকাঠি সদর উপজেলার ধানসিড়ি ইউনিয়নের নিঝুম গ্রাম চর সাচিলাপুর। গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে চলা বিশখালী নদীর বিস্তির্ন চরে শুনশান নিরবতা। জায়গাটিতে সড়ক এবং নৌপথ দুটোতেই সহজ যোগাযোগের ব্যবস্থা নেই। নৈসর্গিক এ স্থানটিকেই পাখিরা বেছে নিয়েছে। গত ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে শীতের এই সময়টা এখানে অতিথি হয়ে আসছে অগণিত জলে ভাসা পাখির দল।

বিশখালীর জলে ভেসে ভেসে সকাল সন্ধ্যা চলে অবগাহন। আবার কখনো শুকনো চরে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে অগণিত পাখির সমাবেশ ঘটে। তবে মানুষের আনাগোনার শব্দ পেলেই আকাশ ঢেকে যায় লাখ লাখ পাখির ডানায়। উড়ে উড়ে আকাশে যেন বিক্ষোভ করে বেড়ায় পাখির দল।

গ্রামবাসী জানায়, এখানে আসা অতিথি পাখিদের মধ্যে বেশির ভাগ বালি হাঁস প্রজাতির। তবে পান কৌড়ি, বকসহ অন্যান্য পাখিও রয়েছে। মাঝে মধ্যে জেলা শহর থেকে লোকজন পাখি শিকারে আসে। তবে তাদের প্রতিহত করেন গ্রামের সাধারণ মানুষরা। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদও পাখিদের দেখভাল করে।

এখানে আনুষ্ঠানিকভাবে অতিথি পাখিদের জন্য অভয়ারণ্য গড়ে তুলতে জেলা প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় ৮ নং ধাননিড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম মাসুম।

প্রতি বছর শীত শেষে গ্রীষ্মের শুরুতেই অতিথি পাখির দল ফিরে যায় তাদের নিজস্ব ঠিকানায়। তবে পরম ভালবাসায় নিয়ে বিশখালী নদীর পাড়ের এ গ্রামবাসী অপেক্ষায় থাকে পরের বছর অতিথিদের বরণের অপেক্ষায়।

 

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.