বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে অটোস্ট্যান্ড, পাঠদান ব্যাহত - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে অটোস্ট্যান্ড, পাঠদান ব্যাহত

SS iT Computer

বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে অটোস্ট্যান্ড, পাঠদান ব্যাহত: গাজীপুরের কালিয়াকৈরের বেনুপুর বজলুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধভাবে অটোস্ট্যান্ড বসানো হয়েছে। এ ছাড়া মাঠে সপ্তাহে দুই দিন হাট বসছে। এতে মাঠটি খেলাধুলার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। একই সঙ্গে ব্যাহত হচ্ছে বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম।

বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ১৯৭৩ সালে বেনুপুর বজলুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। ওই বিদ্যালয়ে ২২ জন শিক্ষক-কর্মচারীসহ প্রায় ৮০০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। গ্রামে খেলাধুলার জন্য কোনো জায়গা না থাকায় আশপাশের যুবকরাও ওই বিদ্যালয়ের মাঠে খেলাধুলা করে আসছে। সম্প্রতি বাঁশের সীমানাপ্রাচীর ভেঙে ওই মাঠে অবৈধভাবে বসানো হয়েছে অটোরিকশা ও ইজি বাইক স্ট্যান্ড। এ ছাড়া সপ্তাহে দুই দিন রবিবার ও বুধবার বসছে হাট। বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালেও অটোরিকশা, ইজি বাইকের পাশাপাশি ট্রাক, পিকআপ ও লরি যত্রতত্র মাঠে ঢুকে যাচ্ছে। এ কারণে মাঠ নষ্ট হয়ে খেলার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এতে খেলাধুলার সময় মাঠে নেমে আহত হয়েছে অনেকেই।

অন্যদিকে মাঠে এসব যান চলাচলে ধুলাবালি উড়ে যাচ্ছে শ্রেণিকক্ষে। ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। এ ছাড়া যানবাহন চলাচলের শব্দ, ধুলাবালি, হাটের কোলাহল আর পশুর ডাকে নষ্ট হচ্ছে বিদ্যালয়ের সার্বিক পরিবেশ। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষের অবহেলায় বিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধ স্ট্যান্ড ও হাট বসানো হয়েছে। এতে মাঠটি খেলাধুলার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। একই সঙ্গে ব্যাহত হচ্ছে পাঠদান। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার মাধ্যমে সুন্দর শিক্ষা ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছে স্থানীয় লোকজন।

এ ব্যাপারে বেনুপুর অটো সমিতির সভাপতি জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘যারা অটো চালায়, তারা সবাই স্থানীয়। তাই স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে আমরা ৪৫-৪৬টি অটো মাঠে রাখছি। কিন্তু অন্য বড় গাড়িও তো মাঠে ঢুকছে। সেগুলোতে বেশি নষ্ট হচ্ছে মাঠ।’

হাটের ইজারাদার জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা কয়েকজন মিলে বিদ্যালয়ের মাঠ ছাড়াই হাটটি ইজারা নিয়েছি। তবে মাঠেও হাট বসানো হচ্ছে। এ কারণে হাটের পক্ষ থেকে স্কুলের উন্নয়নে কিছু টাকা কর্তৃপক্ষকে দিই। তাই আর তারা কিছু বলে না।’

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ বলেন, ‘বাঁশের সীমানাপ্রাচীর ভেঙে মাঠে অবৈধ স্ট্যান্ড বসানো হয়েছে। এ ছাড়া মাঠ ব্যতীত ইজারা দেওয়া হলেও সপ্তাহে দুই দিন মাঠের মধ্যে হাট বসান ইজারাদাররা। এ কারণে শিক্ষা কার্যক্রম ও খেলাধুলায় ব্যাঘাত ঘটছে। কিন্তু অটোস্ট্যান্ড ও হাট সরাতে বললেও শুনছেন না তাঁরা।’

বিদ্যালয়ের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ বলেন, ‘বিদ্যালয়ের মাঠে অবৈধ অটোস্ট্যান্ড ও হাট বসানোর বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.