ছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামলেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

ছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামলেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা

SS iT Computer

ছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামলেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা: গোপালগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত এবং আন্দোলনে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে এবার মাঠে নামলেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা। ‘জাস্টিস ডিলেইড ইজ জাস্টিস ডিনাইড’ লেখা ব্যানার নিয়ে গতকাল সোমবার বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন তাঁরা।

একই দাবিতে পঞ্চম দিনের মতো গতকাল আন্দোলন করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মুখে কালো কাপড় ও হাত বেঁধে এবং কুশপুত্তলিকা পুড়িয়ে তাঁরা বিক্ষোভ করেন।

এ ছাড়া নারী নির্যাতনবিরোধী মানববন্ধন ও মোমবাতি প্রজ্বালন কর্মসূচি পালন করেছে গোপালগঞ্জ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন।

আন্দোলনে বিদেশি শিক্ষার্থীরা : বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বিদেশি শিক্ষার্থীরা দুুপুর ১২টার দিকে মানববন্ধন করেন। পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তাঁরা। ‘জাস্টিস জাস্টিস/উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘স্টপ রেপ/নো রেপ’সহ বিভিন্ন স্লোগানে মিছিলটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে আন্দোলনস্থলে এসে জড়ো হন।

এর আগে মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের নেপালি শিক্ষার্থী বিবেক কর্ন ইংরেজিতে বলেন (যার বাংলা অর্থ), ‘শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বের কোথাও যেন কোনো নারী নির্যাতনের শিকার না হয়। যৌক্তিক দাবিতে আন্দোলনে থাকা কোনো শিক্ষক-শিক্ষার্থী হামলার মুখে না পড়ে। আমরা অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। আমরা ধর্ষণমুক্ত সমাজ চাই। ’

ফার্মেসি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের সোমালিয়ার শিক্ষার্থী আদমও একইভাবে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর সঙ্গে যে ঘটনা ঘটেছে, তা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা অত্যন্ত দুঃখিত। ধর্ষণের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়ানো উচিত। ’

আরেক নেপালি শিক্ষার্থী অস্পিতা কার্তিক বলেন, ‘বর্তমানে এখানে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তবে এ দেশের বিচারব্যবস্থায় আমরা এখনো বিশ্বাস করি। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। ’

আন্দোলন চলবে : আন্দোলনের পঞ্চম দিনে সকাল ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অনন্যা রহমান। আজ মঙ্গলবারও তাঁদের আন্দোলন চলবে বলে তিনি জানান। পরে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন ও স্লোগানে দিনের আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যান তাঁরা।

মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ : বিকেল সাড়ে ৫টায় প্রশাসনিক ভবনের সামনে জয় বাংলা চত্বরের সড়কে দাঁড়িয়ে মুখে কালো কাপড় ও হাত বেঁধে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। প্রায় এক ঘণ্টা কালো কাপড় বেঁধে মৌনতা পালন করা হয়।

কুশপুত্তলিকা দাহ : দোষীদের বিচারের দাবিতে গ্রেপ্তার ছয় অভিযুক্তের কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়। এর আগে কুশপুত্তলিকায় জুতাপেটা করেন শিক্ষার্থীরা।

উদীচীর মানববন্ধন ও মোমবাতি প্রজ্বালন : গোপালগঞ্জ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীসহ বিভিন্ন সংগঠন বিকেল সাড়ে ৫টায় স্থানীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে হাতে হাত ধরে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করে। এতে জেলা উদীচীর সাধারণ সম্পাদক আনিচুর রহমান রাজু, খেলাঘরের কেন্দ্রীয় সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শিপন, জেলা উদীচীর সদস্য প্রীতিলতা মণ্ডল, বশেমুরবিপ্রবি উদীচী শাখার আহ্বায়ক পিউ মৃধা বক্তব্য দেন।

মানববন্ধন শেষে গোপালগঞ্জের কেন্দ্রীয় পৌর শহীদ মিনারের পাদদেশে মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। শহীদ মিনার বেদিতে শিল্পীরা মোমবাতি প্রজ্বালন করে নারী নির্যাতনের মতো অন্ধকারকে পেছনে ফেলে সমাজকে আলোর দিকে অগ্রসর হওয়ার আহ্বান জানান।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.