কুয়েট শিক্ষক মৃত্যু : শোকজের জবাব দিয়েছে শিক্ষার্থীরা - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

কুয়েট শিক্ষক মৃত্যু : শোকজের জবাব দিয়েছে শিক্ষার্থীরা

SS iT Computer

কুয়েট শিক্ষক মৃত্যু : শোকজের জবাব দিয়েছে শিক্ষার্থীরা খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) লালন শাহ হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেনের মৃত্যুর ঘটনায় শোকজ নোটিশের জবাব দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। সোমবার বিকাল ৫টার মধ্যে তারা মেইল ও কুরিয়ারের মাধ্যমে নোটিশের জবাব দেন। ৩০ ডিসেম্বর তাদের শোকজ করা হয়েছিল।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ছাত্র-শৃঙ্খলা কমিটির সভা হওয়ার কথা। এতে নোটিশের জবাবের বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। আগামীকাল বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭৯তম জরুরি সিন্ডিকেট সভা হবে। এই সভায় শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত তুলে ধরা হবে। এরপরই নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

কুয়েটের জনসংযোগ ও তথ্য শাখার কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম জানান, বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই শোকজের জবাব দিয়েছেন। অনেকেই মেইল ও কুরিয়ারের মাধ্যমে জবাব দিয়েছেন। কারণ শিক্ষক মৃত্যুর পর ক্যাম্পাস বন্ধ রয়েছে। মানসিক নিপীড়নের কারণে ৩০ নভেম্বর প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেন মারা যান বলে অভিযোগ পরিবারের। এই মৃত্যুর পর ক্যাম্পাস উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ৩ ডিসেম্বর জরুরি সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজানসহ নয় ছাত্রকে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

অভিযোগ ওঠে, দাফতরিক কক্ষে কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজানের নেতৃত্বে কিছু সাধারণ ছাত্রের জেরা, অপমান, অবরুদ্ধ করে রাখা ও মানসিক নির্যাতনে ড. সেলিমের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে দুই দফায় কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ২৮ ডিসেম্বর এই কমিটি ৪৮ পৃষ্ঠার রিপোর্ট জমা দেয় ভিসির কাছে। তদন্ত কমিটি ৩ ডিসেম্বর থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত তদন্ত করেন। এ সময় ৩৫ জন শিক্ষক, ৬৫ জন শিক্ষার্থী, ১৭ জন কর্মকর্তাসহ মোট ১২৬ জনের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

২৮ ডিসেম্বর তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর ৩০ ডিসেম্বর কুয়েটের ৪৪ জন শিক্ষার্থীকে শোকজ করা হয়। যার জবাব দেওয়ার শেষ সময় ছিল ৩ জানুয়ারি বিকাল ৫টা পর্যন্ত। কুয়েটের ছাত্র কল্যাণ পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. ঈসমাইল সাইফুল্লাহ জানান, তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ৪৪ শিক্ষার্থীকে শোকজ করা হয়েছিল। যার মধ্যে সাময়িক বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীরাও ছিল। ইতোমধ্যে প্রায় সবাই শোকজের জবাব দিয়েছেন।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.