কলেজে ভর্তির সুযোগ পাননি ১ লাখ ১৮ হাজার শিক্ষার্থী - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

কলেজে ভর্তির সুযোগ পাননি ১ লাখ ১৮ হাজার শিক্ষার্থী

SS iT Computer

কলেজে ভর্তির সুযোগ পাননি ১ লাখ ১৮ হাজার শিক্ষার্থী: বিভিন্ন কলেজ ও মাদরাসার একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথম ধাপে আবেদন করা ১৪ লাখ ৫৭ হাজারে বেশি শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। ১৫ লাখ ৭৬ শিক্ষার্থী প্রথম ধাপে ভর্তির আবেদন করেছিলেন। এদের মধ্যে ৪ লাখ ৭৭ হাজার ৫২০ জন শিক্ষার্থী বিজ্ঞান বিভাগে, ৭ লাখ ১১ হাজার ৭০১ জন শিক্ষার্থী ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে এবং ২ লাখ ৬৮ হাজার ৫ জন শিক্ষার্থী মানবিক বিভাগে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। তবে, ১ লাখ ১৮ হাজার ৯০৭ জন শিক্ষার্থী প্রথম ধাপে ভর্তির আবেদন করলেও কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হতে পারেননি। জিপিএ-৫ পেয়েও কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হতে পারেননি ১২ হাজার ১৬০ জন শিক্ষার্থী।

তবে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপের আবেদন করেও ভর্তির সুযোগ না পাওয়া শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপে আবেদনের সুযোগ পাচ্ছেন। আগামী ৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন নেয়া হবে। আর ১৩ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের সুযোগ দেয়া হবে।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় একাদশে ভর্তির প্রথম ধাপের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হয়। কেন্দ্রীয় ভর্তির ওয়েবসাইটে ফল দেখা যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা মোবাইলে এসএমএস করেও ফল জানানো হয়েছে।

নির্ধারিত ওয়েবসাইটে (http://board6.xiclassadmission.gov.bd/board/viewResult22) রোল নম্বর ও রেজিস্টেশন নম্বর দিয়ে শিক্ষার্থীরা কলেজে ভর্তির ফল দেখতে পারছেন।

ফল প্রকাশের বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক আবু তালেব মো মোয়াজ্জেম হোসেন শনিবার রাতে দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, প্রথম ধাপে ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ২২৬ শিক্ষার্থী বিভিন্ন কলেজ ও মাদরাসায় একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। শিক্ষার্থীরা ওয়েবসাইটে ফল দেখতে পাচ্ছেন। তাদের এসএমএসের মাধ্যমেও ফল জানিয়ে দেয়া হচ্ছে।

ফল প্রক্রিয়ার দায়িত্বে থাকা বুয়েটের বিশেষজ্ঞ দলের দেয়া তথ্যে জানা গেছে, ৪ লাখ ৭৭ হাজার ৫২০ জন শিক্ষার্থী বিজ্ঞান বিভাগে, ৭ লাখ ১১ হাজার ৭০১ জন শিক্ষার্থী ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে এবং ২ লাখ ৬৮ হাজার ৫ জন শিক্ষার্থী মানবিক বিভাগে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

১ লাখ ১৮ হাজার ৯০৭ জন শিক্ষার্থী প্রথম ধাপে ভর্তির আবেদন করলেও কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হতে পারেননি। বিজ্ঞান বিভাগের ৩২ হাজার ৯৪ জন, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ৭৬ হাজার ১৮ জন ও মানবিক বিভাগের ১০ হাজার ৭৯৫ জন শিক্ষার্থী প্রথম ধাপের ভর্তির জন্য নির্বাচিত হতে পারেননি।

জিপিএ -৫ পেয়েও কলেজ ভর্তির জন্য নির্বাচিত হতে পারেননি ১২ হাজার ১৬০ জন শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ঢাকা বোর্ডের ৪ হাজার ৯০৫ জন, কুমিল্লা বোর্ডের ১ হাজার ৪৩৮ জন, রাজশাহী বোর্ডের ১ হাজার ৮০৩ জন, যশোর বোর্ডের ২৭৫ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডের ৬৬৬ জন, বরিশাল বোর্ডের ৪৯৬ জন, সিলেট বোর্ডের ৮৩ জন, দিনাজপুর বোর্ডের ১ হাজার ৫৬৪ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডের ৫৮৫ জন, মাদরাসা বোর্ডের ১৬৫ জন ও কারিগরি বোর্ডের ৭ জন শিক্ষার্থী রয়েছেন। জিপিএ-৫, পেয়েও কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া শিক্ষার্থীরা সবাই বিজ্ঞান বিভাগের।

বোর্ড জানিয়েছে, নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ৩০ জানুয়ারি থেকে ৬ ফ্রেব্রুয়ারি রাত ৮ টার মধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং চার্জ বাদে রেজিস্ট্রেশন ফিয়ের ২২৮ টাকা জমা দিয়ে ভর্তির প্রাথমিক নিশ্চায়ন করতে হবে। তবে পরবর্তীতে মাইগ্রেশন হলে শিক্ষার্থীকে নতুন করে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে না অর্থাৎ রেজিস্ট্রেশন ফি দিতে হবে না। নির্বাচিতদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির তারিখ ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। ক্লাস শুরুর তারিখ ২ মার্চ।

জানা গেছে, বিভিন্ন কলেজ ও মাদরাসায় একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে প্রথম ধাপে প্রায় ১৬ লাখ শিক্ষার্থী আবেদন করেছিলেন। তারা তারা মোট ৮৫ লাখের বেশি পছন্দ দিয়েছিলেন।

শিক্ষা বোর্ডগুলো বলছে, ৭ ও ৮ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন নেয়া হবে। পছন্দক্রম অনুযায়ী প্রথম মাইগ্রেশনের ফল এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে ১০ ফেব্রুয়ারি। ১১-১২ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে। ১৩ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন নিয়ে পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল এবং তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ করা হবে ১৫ ফেব্রুয়ারি। ১৬ ও ১৭ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে। ১৯ থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হবে। আর ২ মার্চ থেকে কলেজগুলোতে একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে।

গত ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। এবার মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪০ হাজার ৩৯৫ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ২০ লাখ ৯৬ হাজার ৫৪৬ জন। গড় পাস করেছে ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ শিক্ষার্থী।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.