এ কী লিখলেন শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা! - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

এ কী লিখলেন শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা!

SS iT Computer
এ কী লিখলেন শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা: অনার্স চতুর্থ বর্ষের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিষয়ের একটি গাইডে লেখা হয়েছে ‘চাকমাদের প্রধান খাদ্য ভাত ও মদ’।  ব্যাতিক্রম প্রকাশনী প্রকাশিত ‘অনার্স চতুর্থ বর্ষ উদ্ভিদবিজ্ঞান ইজি প্লাস ১ম খন্ড’ গাইড বইয়ের ২৫৫ পৃষ্ঠায় এমনটাই বলা হয়েছে। রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা শ্যামল সরদার বইটি লিখেছেন।  

বিষয়টি নিয়ে সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে সমালোচনা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ বলছেন, এমন কথা লিখে প্রকাশক চাকমাদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছেন। কেউ কেউ মামলা করবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন।

ব্যাতিক্রম প্রকাশনী প্রকাশিত ‘অনার্স চতুর্থ বর্ষ উদ্ভিদবিজ্ঞান ইজি প্লাস ১ম খন্ড’ গাইড বইয়ের ২৫৫ পৃষ্ঠায় অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নে উত্তর অংশে ৫.১৭ নম্বর প্রশ্ন হিসেবে বলা হয়েছে, চাকমাদের প্রধান খাদ্য কি? এর উত্তর অংশে বলা হয়েছে, ভাত ও মদ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাকমাদের প্রধান খাবার ভাত। ভাতের সাথে তারা সাধারণত মাছ সবজি ইত্যাদি খেয়ে থাকেন।

এদিকে গাইড বইয়ে চাকমাদের প্রধান খাবার মদ লেখার সমালোচনা করে দৈনিক সমকালের সিনিয়র সাংবাদিক রাজীব নূর তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘মদকে কেউ প্রধান খাদ্যের তালিকায় রাখতে পারে, এটা আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। আমার অনেক বন্ধুবান্ধব চাকমা। ওদের কাছে বেড়াতে গিয়েছি। কিন্তু কেউ আমাকে ভাতের সঙ্গে মদ খেতে দেয়নি। ওদের কাউকেও মদ দিয়ে ভাত খেতে দেখিনি।

পোস্টে তিনি আরও লিখেছেন, ভাবছি মামলা ঠুকে দেবো কি না।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ বিষয়টির সমালোচনা করে ভোলা সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী মেহেদি হাসান নাজমুল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া একটি পোস্টে প্রশ্ন তুলেছেন, এটি কি সাংস্কৃতিক পার্থক্য বা বহুসংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাবোধ নাকি ঘৃণার ইচ্ছাকৃত বহিঃপ্রকাশ?

অনার্স চতুর্থ বর্ষ উদ্ভিদবিজ্ঞান ইজি প্লাস ১ম খন্ড গাইড বইয়ের ২৫৫ পৃষ্ঠা। ছবি : সংগৃহীত

বইটির বিষয়ে কথা বলতে দৈনিক শিক্ষাডটকমের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয় ব্যাতিক্রম পাবলিকেশন্সের সাথে। প্রকাশনীর অফিসে যোগাযোগ করা হলে কেউ বইটির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি। তারা এ বিষয়ে প্রকাশক সাহেব আলীর সাথে যোগাযোগ করে মন্তব্য জানার পরামর্শ দেন।

ব্যাতিক্রম পাবলিকেশন্সের অফিস থেকে দেওয়া ফোন নম্বরে প্রকাশক সাহেব আলীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

অনার্স চতুর্থ বর্ষ উদ্ভিদবিজ্ঞান ইজি প্লাস ১ম খন্ড গাইড। ছবি : সংগৃহীত

এ বিষয়ে বইটির লেখক সরকারি তিতুমীর কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তা শ্যামল সরদারের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায় নি।

অনার্স চতুর্থ বর্ষ উদ্ভিদবিজ্ঞান ইজি প্লাস ১ম খন্ড গাইড। ছবি : সংগৃহীত

কিছুদিন আগে একই প্রকাশনীর একটি গাইড বইয়ে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগে দুইজন শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নেয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। তাদের শোকজ করা হয়েছে। অভিযুক্তরা হলেন, মাগুরার সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. আসাদুজ্জামান ও কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে প্রভাষক মো. আবু বকর সিদ্দিক। তারা যৌথভাবে ব্যতিক্রম পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ বছর মেয়াদি ডিগ্রি (পাস) দ্বিতীয় বর্ষের ‘বাংলাদেশের সরকার ও রাজনীতি’(রাষ্ট্রবিজ্ঞান তৃতীয় পত্র) বিষয়ের গাইড বইয়ের লেখক। এ গাইডে ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগে তাদের শোকজ করা হয়েছিল।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.