এসএসসি ও সমমানে গড় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

এসএসসি ও সমমানে গড় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ

SS iT Computer

মহামাররি সঙ্কেটে বিলম্বিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার রেকর্ড ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

এই হিসাবে পাসের হার বেড়েছে ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ পয়েন্ট। গতবছর মাধ্যমিক স্তরের এই পরীক্ষায় ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এবারের মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে তিনি নতুন বছরের পাঠ্যবই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

মূল অনুষ্ঠানটি হয় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। বেলা ১১টায় সেখানেই সংবাদ সম্মেলন করে এবারের ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট ও মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে ফল পাওয়া যাবে।

বেশ কয়েক বছর ধরে দেশে ফেব্রুয়ারিতে মাধ্যমিকের পরীক্ষা হয়ে আসছিল। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবার নয় মাস পিছিয়ে ১৪ নভেম্বর এ পরীক্ষা শুরু হয়।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হলে ২০২০ সালের মার্চে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তাতে দশম শ্রেণিতে আড়াই মাস শ্রেণীকক্ষে ক্লাস করার সুযোগ পায় এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থীরা।

অনলাইনে ক্লাস চললেও ১২ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার পর দেড় মাস শ্রেণিকক্ষে ক্লাস করে এসএসসি পরীক্ষায় বসতে হয়েছে তাদের।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে এ বছর পরীক্ষাও হয়েছে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে। তিন ঘন্টার পরিবর্তে পরীক্ষা হয়েছে দেড় ঘন্টায়। কেবল তিনটি নৈর্বচনিক বিষয়ের পরীক্ষায় বসতে হয়েছে শিক্ষার্থীদের।

চলতি বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। গতবছর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। গত বছরের থেকে চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থী বেড়েছে ১ লাখ ৭৯ হাজার ৩৩৪ জন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের হিসেব বলছে, চলতি বছর ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে মোট ২৯ হাজার ৩৫টি স্কুল, মাদরাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানের ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩জন পরীক্ষার্থী এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। ৯টি সাধারণ বোর্ড থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন ১৭ হাজার ৬৭৬টি স্কুলের ১৮ লাখ ৯৯৮ জন শিক্ষার্থী।

আর ৯হাজার ১১০টি মাদরাসার ৩ লাখ ১ হাজার ৮৮৭জন পরীক্ষার্থী ৭১০টি কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল পরীক্ষায় অংশ নেন ২ হাজার ৩৪৯টি কারিগরি প্রতিষ্ঠানের ১ লাখ ২৪ হাজার ২২৮ জন শিক্ষার্থী।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.