উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএসসি উত্তীর্ণদের একাদশে ভর্তিতে বয়সের বাধা কাটলো - আজকের শিক্ষা || ajkershiksha.com

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএসসি উত্তীর্ণদের একাদশে ভর্তিতে বয়সের বাধা কাটলো

SS iT Computer

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএসসি উত্তীর্ণদের একাদশে ভর্তিতে বয়সের বাধা কাটলো: বাংলাদেশে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করা শিক্ষার্থীরা যে কোনো বয়সেরই হোক একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবে। তবে সাধারণ ও কারিগরি-মাদ্রাসা বোর্ডের ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের শিক্ষার্থীরা সরাসরি এবং এর আগে পাস করা শিক্ষার্থীরা বোর্ডের অনুমতি নিয়ে ভর্তি হতে পারবে।

আগামী ২ মার্চ একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু করা হবে। এর আগে এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের অনলাইনে আবেদন নিয়ে ভর্তি করা হবে। আবেদন নেওয়ার কাজটি শুরু হবে ৫ জানুয়ারি। বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম শুরুর আগে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। এখন পর্যন্ত ফল প্রকাশের তারিখ নির্ধারিত হয়নি। শিক্ষা বোর্ডগুলো ২৯ বা ৩১ ডিসেম্বরে ফল প্রকাশের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

এ সংক্রান্ত একটি ফাইল অনুমোদনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর তারিখ নির্ধারিত হতে পারে। তিনি বর্তমানে মালদ্বীপ সফরে আছেন। তার ২৭ ডিসেম্বর দেশে ফেরার কথা আছে। একটি সূত্র জানায়, শিক্ষা মন্ত্রণালয় পাঠ্যবই বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন আর ফল প্রকাশ একইদিন করার চিন্তা করছে। এজন্য ফল প্রকাশ বিলম্বিত হয়েছে।

সভা সূত্র জানায়, দুই সপ্তাহের সময় দিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আবেদন নেওয়া হবে। সরকারি-বেসরকারিসহ সব ধরনের কলেজ এবং মাদ্রাসা এবারও ডিজিটাল পদ্ধতির এই ভর্তি ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত হবে। আবেদন নেওয়া হবে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত।

আবেদনের প্রথম ফল প্রকাশ করা হবে ১৯ ফেব্রুয়ারি। গত বছরের মতো এবারও মোট তিন দফায় শিক্ষার্থীদের পছন্দের কলেজ ও মাদ্রাসার তালিকা প্রকাশ করা হবে। সর্বশেষ ফল দেওয়া হবে ২৪ ফেব্রুয়ারি। গত বছরের মতোই প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীরা পছন্দের প্রতিষ্ঠান পাবে। ভর্তির সব প্রক্রিয়া শেষ করা হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি।

জানা যায়, শিক্ষা মন্ত্রণালয় নামে একটি কোটায় ২ শতাংশ শিক্ষার্থী ভর্তির বিধান যুক্ত করা হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী প্রশ্ন তুলে বলেন, তাহলে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ও কোটা চাইলে কী হবে। এরপর কর্মকর্তারা এই কোটা বাতিলে সম্মত হন।

এবার শিক্ষার্থীরা www.xiclassadmission.gov.bd এই ওয়েবসাইটে ঢুকে আবেদন করতে পারবে। আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫০ টাকা। নগদ, সোনালী ব্যাংক, টেলিটক, বিকাশ, শিওর ক্যাশ ও রকেটের মাধ্যমে ফি পরিশোধ করা যাবে। পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিংয়েও আজ থেকে www.btebadmission.gov.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভর্তি আবেদন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা। ভর্তিকালে শিক্ষার্থীরা রেড ক্রিসেন্ট বাবদ যে ফি দেবে, তার ৪০ শতাংশ বোর্ড এবং ৬০ শতাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রাখবে।

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

বাছাইকৃত সংবাদঃ

Comments are closed.